প্রখ্যাত মুবাল্লিগ মাওলানা মুফতি মুরশিদুল আলম চৌধুরীর ইন্তেকালে শোক

 

প্রেস বিজ্ঞপ্তি
কক্সবাজার জেলার কৃতিসন্তান, বিদগ্ধ আলেমেদ্বীন, জেলা তাবলীগ জামাতের আমীর ও রামুর অফিসেরচর ইসলামিয়া কওমিয়া কাছেমুল উলুম মাদ্রাসার মুহতামিম মাওলানা মূফতি মুর্শিদুল আলম চৌধুরীর ইন্তেকালে গভীর শোক ও সমবেদনা জ্ঞাপন করেছেন, বাংলাদেশ নেজামে ইসলাম পার্টি কক্সবাজার জেলা আমীর মাওলানা হাফেজ ছালামতুল্লাহ, নায়েবে আমীর মাওলানা আ. হ. ম নুরুল কবির হিলালী, সাধারণ সম্পাদক মাওলানা মুহাম্মদ ইয়াছিন হাবিব, যুগ্ম-সম্পাদক মাওলানা আব্দুর রহমান জিহাদী, মাওলানা ফরিদুল হক, রামু উপজেলা আহবায়ক মাওলানা হাফেজ আব্দুর রহিম রাহী, কক্সবাজার শহর আমীর মাওলানা নুরুল হক চকোরী, সাধারণ সম্পাদক মাওলানা খালেদ সাইফী, বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রসমাজের কেন্দ্রীয় সিনিয়র সহ-সভাপতি হাফেজ মুহাম্মদ আবুল মঞ্জুর, কক্সবাজার জেলা সভাপতি হাফেজ শওকত আলী, সহ-সভাপতি মুহাম্মদ আব্দুল হামিদ, সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ দিদারুল আলম, সাংগঠনিক সম্পাদক মুহাম্মদ আতাউল্লাহ, রামু উপজেলা সভাপতি মুহাম্মদ আব্দুল করিম, সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ অলি উল্লাহ আরজু, সাংগঠনিক সম্পাদক হাফেজ আশরাফ হোসাইন প্রমুখ।
এক শোকবার্তায় নেতৃবৃন্দ বলেন, মাওলানা মূফতি মুর্শিদুল আলম চৌধুরী রহ. ছিলেন, একজন যুগসচেতন আলেমেদ্বীন, বিদগ্ধ মুফতি, প্রখ্যাত মুহাদ্দিস। তিনি তাবলীগ জামাতের জাতীয় মজলিসে শুরা সদস্য এবং কক্সবাজার জেলা তাবলীগ জামাতের আমীর (জিম্মাদার) হিসেবে সুদীর্ঘকাল দায়িত্ব পালন করেছেন। তাঁর দাওয়াতী মিশন দেশের গণ্ডি পেরিয়ে বহির্বিশ্বেও বিস্তৃতি লাভ করেছিল। তিনি দ্বীনের দাওয়াতী মিশন নিয়ে বিশ্বের ৪০টিরও বেশী দেশ সফর করেছেন। শিরক–বিদআতসহ যাবতীয় কুসংস্কার ও অপসংস্কৃতি নির্মূলে তিনি ছিলেন দৃঢ়চেতা ও আপসহীন। দ্বীনি দাওয়াত ও ইসলামী শিক্ষার ক্রমবিকাশধারায় তাঁর নিষ্ঠাপূর্ণ অনন্য অবদান চির অম্লান হয়ে থাকবে।
জেলার বরেণ্য এ আলেমেদ্বীনের ইন্তেকালে আমরা একজন সাহসী, বিদগ্ধ, বিচক্ষণ অভিভাবককে হারালাম। আমরা আল্লাহর দরবারে মরহুমের রুহের মাগফিরাত কামনা করি এবং শোকাহত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানাই।

উল্লেখ্য, মাওলানা মুফতি মুরশিদুল আলম চৌধুরী রহ. ২ আগষ্ট ( রবিবার) বিকাল ৪ টা ৪৫ মিনিটে রামু উপজেলার ফতেখাঁরকুল ইউনিয়নের সিপাহীরপাড়া গ্রামস্থ নিজ বাড়িতে ইন্তেকাল করেছেন-ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন। তিনি রামুর বিশিষ্ট জমিদার মরহুম সুলতান আহমদ সওদাগরের ৭ম ছেলে। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিলো ৬৫ বছর। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, ৪ মেয়ে, ১ ছেলে এবং অসংখ্য ভক্ত, গুণগ্রাহী রেখে যান।