সৈকতে পর্যটকদের করোনা সংক্রমণ রোধে ধর্মীয় নেতৃবৃন্দের ভূমিকা শীর্ষক কর্মশালা

সোয়েব সাঈদ:
কক্সবাজার জেলায় আগত পর্যটকদের মাঝে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে সচেতনতা বৃদ্ধিতে ধর্মীয় নেতৃবৃন্দদের ভূমিকা শীর্ষক অবহিতকরণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা একলাব এর আয়োজনে কক্সবাজার জেলা প্রশাসন ও ইসলামিক ফাউন্ডেশন এর সার্বিক নির্দেশনায় ও ইউনিসেফ এর সহযোগিতায় কর্মশালাটি অনুষ্ঠিত হয়।
গত বুধবার (২ সেপ্টেম্বর) ইসলামিক ফাউন্ডেশন কক্সবাজার জেলা কার্যালয়ের সভা কক্ষে এ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন ইসলামিক ফাউন্ডেশন কক্সবাজার জেলার উপপরিচালক ফাহমিদা বেগম। সহকারি পরিচালক মোহাম্মদ সরওয়ার আকবরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন একলাব কক্সবাজার আঞ্চলিক প্রধান মো: রাশিদুল হাসান এবং কক্সবাজার জেলা ইমাম সমিতির সভাপতি আলহাজ¦ মাওলানা কাজী মুহাম্মদ সিরাজুল ইসলাম সিদ্দিকী।
অনুষ্ঠানে নেতৃবৃন্দ একমত পোষণ করে বলেন, গত ১৭ আগষ্ট থেকে সমূদ্র সৈকতে পর্যটকদের ঢল নামার ফলে করোনা ভাইরাস সংক্রমণের ঝুঁকি পূর্বের তুলনায় অনেকাংশে বৃদ্ধি পেয়েছে। এমতাবস্থায় ইমাম সমাজের ভুমিকা অনেক বেড়ে গেছে। প্রতি ওয়াক্ত নামাজ শেষে ইমামগণ উপস্থিত মুসল্লীবৃন্দের মাঝে করোনা প্রতিরোধে নি¤েœর বার্তাসমূহ পৌছে দিবে- যার মধ্যে রয়েছে-নিয়মিত কমপক্ষে ২০ সেকেন্ড হাত পরিস্কার করা অথবা স্যানিটাইজার ব্যবহার করা, সবসময় মুখ ও নাক ঢেকে মাস্ক ব্যবহার করা এবং কথা বলার সময় অবশ্যই মাস্ক না খোলা। একে অপরের মাঝে কমপক্ষে ৩ ফুট শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখা।’ ব্যবহৃত মাস্ক ও বর্জ্য নির্দিস্ট ডাস্টবিনে ফেলা এবং কিটকট বা অন্য যে কোন রাইড ব্যবহারের ক্ষেত্রে তা স্যাভলন দিয়ে পরিস্কার করা হয়েছে কিনা তা নিশ্চিত হয়ে নেয়া।
প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে ইমাম সমাজের উদ্দেশ্যে বলেন, প্রতি ওয়াক্ত নামাজ শেষে ইমামগণ বিশেষ করে সমুদ্র সৈকত সংলগ্ন মসজিদের ইমামগণ যদি এই বার্তাসমূহ নিয়মিত প্রচার করি তাহলে পর্যটকসহ স্থানীয়দের মাঝেও করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে সচেতনতা অনেক বৃদ্ধি পাবে। এজন্য তিনি উপস্থিত সকল ইমামগণের প্রতি বিশেষ অনুরোধ করেন এবং ইমাম সমিতির সভাপতির মাধ্যমে জেলার অন্যান্য ইমামদের ও দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। তিনি করোনা ভাইরাস সংক্রমণ হতে কক্সবাজারবাসীকে রক্ষা করার জন্য ইমামবৃন্দের আন্তরিক সহযোগিতা কামনা করেছেন।