কক্সবাজারে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে, একদিনে শনাক্ত ৮২ জন

কক্সবাজারে করোনাভাইরাসে শনাক্তের সংখ্যা আরও বেড়েছে।
গত ২৪ ঘণ্টায় কক্সবাজার মেডিকেল কলেজের মাইক্রোবায়োলজি ল্যাবে ৬৫৪ টি নমুনা পরীক্ষায় নতুন করে ৮২ জনের মধ্যে কোভিড-১৯ শনাক্ত হয়েছে। এছাড়াও একজনের ফলোআপ রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে।
৫ এপ্রিল সোমবার কক্সবাজার মেডিকেল কলেজের সংক্রামক রোগ ট্রপিক্যাল মেডিসিন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডাঃ শাহজাহান নাজির এই তথ্য নিশ্চিত করেছে।
তিনি জানান, কক্সবাজার সদর উপজেলায় হু হু করে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। সোমবার একদিনেই কক্সবাজার সদরে করোনা শনাক্ত হয়েছে ৪৭ জনের। এছাড়াও রামুতে ৩ জন, উখিয়ায় ৮ জন, টেকনাফে ৬ জন, চকরিয়ায় ৮ জন, পেকুয়ায় ১ জন, মহেশখালীতে ৭ জন, বান্দরবান জেলার ১ জন ও একজন রোহিঙ্গার করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে।
গত বছরের মার্চের ৮ তারিখে বাংলাদেশে প্রথম করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। এরপরের দুই মাস দৈনিক শনাক্তের সংখ্যা তিন অংকের মধ্যে থাকলেও সেটা বাড়তে বাড়তে জুলাই মাসে সর্বোচ্চ পর্যায়ে পৌঁছায়।
গত বছর দোসরা জুলাই সর্বোচ্চ ৪,০১৯ জনের মধ্যে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। এরপর বেশ কিছুদিন দৈনিক শনাক্তের সংখ্যা কমতে কমতে এক পর্যায়ে তিনশোর ঘরে নেমে এসেছিল।
তবে মার্চের শুরু থেকেই শনাক্তে ঊর্ধ্বগতি শুরু হয়। এমনকি মৃত্যুর সংখ্যাও বেশ কিছুদিন দশের নিচে ছিল। কিন্তু তাতে দেখা যাচ্ছে ঊর্ধ্বগতি।
এদিকে করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে এক সপ্তাহের লকডাউন ঘোষনার পর থেকে পর্যটকশূন্য কক্সবাজার সমুদ্র সৈকত। সৈকতের প্রবেশপথে বসানো হয়েছে ব্যারিকেড। কাউকে সৈকতে নামতে দেওয়া হচ্ছে না। জেলার পর্যটন স্পট ও বিনোদন কেন্দ্রগুলো বন্ধ রয়েছে।
সকল পর্যটন স্পট ও বিনোদন কেন্দ্র আগামী ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। লকডাউন ঘিরে সরকারের ১৮ দফা সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে জোর তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে জেলা প্রশাসন।