পেকুয়ায় খালে মিললো নিখোঁজ যুবকের মরদেহ

ইমরান হোসাইন, পেকুয়া:

কক্সবাজারের পেকুয়ায় নিখোঁজের তিনদিন পর খালের পানিতে ভাসমান অবস্থায় মোঃ ছায়েদ (১৯) নামের এক যুবকের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৬জানুয়ারি) সন্ধ্যা সাড়ে ৫ টার দিকে মগানামা ইউনিয়নের ধারিয়াখালী এলাকার ভোলা খালে মরদেহটি নদীতে ভাসতে দেখে পুলিশকে খবর দেয় স্থানীয় বাসিন্দারা। পরে পেকুয়া থানার একদল পুলিশ মরদেহটি উদ্ধার করে।

নিহত যুবক মোঃ ছায়েদ মগনামা ইউনিয়নের বাজারপাড়া এলাকার শহিদুল ইসলামের ছেলে।

নিহতের মামা ইউপি সদস্য নুর মোহাম্মদ মাদু বলেন, মোঃ ছায়েদ শ্রমিক হিসেবে তার মামা নুরুল ইসলামের শরত ঘোনার লবণের মাঠে কাজ করতো। চলতি লবণ মৌসুমে সে এ কাজের জন্য চুক্তিবদ্ধ হয়। কিন্তু গত সোমবার রাত থেকে তার সন্ধান পাওয়া যাচ্ছিলো না। সম্ভাব্য জায়গায় ছায়েদের খোঁজ না পেয়ে থানায় ডায়েরি করে তার পরিবার।

মরদেহ উদ্ধারের সত্যতা নিশ্চিত করে পেকুয়া থানার ওসি কামরুল আজম বলেন, স্থানীয় বাসিন্দাদের খবরে ভোলা খালের মগনামা ইউনিয়নের ধারিয়াখালী অংশ থেকে যুবক মোঃ ছায়েদের মরদেহটি উদ্ধার করা হয়েছে। মরদেহটি ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তার মৃত্যুর কারণ অনুসন্ধানে কাজ করছে পুলিশ।

নিহতের মামা ইউপি সদস্য নুর মোহাম্মদ মাদু বলেন, মোঃ ছায়েদ শ্রমিক হিসেবে তার মামা নুরুল ইসলামের শরত ঘোনার লবণের মাঠে কাজ করতো। চলতি লবণ মৌসুমে সে এ কাজের জন্য চুক্তিবদ্ধ হয়। কিন্তু গত সোমবার রাত থেকে তার সন্ধান পাওয়া যাচ্ছিলো না। সম্ভাব্য জায়গায় ছায়েদের খোঁজ না পেয়ে থানায় ডায়েরি করে তার পরিবার।

মরদেহ উদ্ধারের সত্যতা নিশ্চিত করে পেকুয়া থানার ওসি কামরুল আজম বলেন, স্থানীয় বাসিন্দাদের খবরে ভোলা খালের মগনামা ইউনিয়নের ধারিয়াখালী অংশ থেকে যুবক মোঃ ছায়েদের মরদেহটি উদ্ধার করা হয়েছে। মরদেহটি ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তার মৃত্যুর কারণ অনুসন্ধানে কাজ করছে পুলিশ।