চবির ইতিহাসে একদিনে দুই ভিসি

সিবিকে ডেস্কঃ

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি) ইতিহাসে প্রথমবারের মতো একদিনে দুই উপাচার্য দায়িত্ব পালন করছেন আজ। বৃহস্পতিবার (২৯ এপ্রিল)  সকালে উপাচার্য পদে রুটিন দায়িত্ব পালন করবেন ড. মহীবুল আজিজ। আর বিকেলে ফের পুনঃবহাল হয়ে সেই চেয়ারে বসছেন ড. শিরীণ আখতারই।

সিভয়েসকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত  রেজিস্ট্রার অধ্যাপক এসএম মনিরুল হাসান। তিনি বলেন, ‘আজ উপাচার্য ড. শিরীণ আখতার ২৫ বছরের শিক্ষকতা পেশা থেকে অবসরে যাচ্ছেন। সকালবেলা তিনি বাংলা বিভাগে ফিরে গিয়ে অবসর গ্রহণের আনুষ্ঠানিকতা পালন করবেন। বিকেলে আবার উপচার্যের দায়িত্ব বুঝে নিবেন। আর এই সময়টুকু বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলরের রুটিন দায়িত্ব পালন করবেন অধ্যাপক মহীবুল আজিজ।’

এর আগে গত ৯ মার্চ শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সরকারি সাধারণ বিশ্ববিদ্যালয় শাখার উপসচিব নূর-ই-আলম সাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে উপাচার্য পদে ড. শিরীণ আখতারকে পুনঃনিয়োগ করা হয়।

প্রফেসর শিরীণ আখতার চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৮তম ও প্রথম নারী উপাচার্য। ২০১৯ সালের ৩০ জুন তিনি উপ-উপাচার্য থেকে ভারপ্রাপ্ত উপাচার্যের দায়িত্ব পান। একই বছরের ৩ নভেম্বর তিনি পূর্ণ উপাচার্যের দায়িত্ব পান। আজ দ্বিতীয় মেয়াদে দায়িত্ব নিবেন।

অন্যদিকে প্রথমবার চবির প্রশাসনিক দায়িত্বে একদিনের জন্য উপাচার্যের দায়িত্ব পালন করবেন ড. মহীবুল আজিজ। বাংলা বিভাগের এই জ্যেষ্ঠ শিক্ষক কলা ও মানববিদ্যা অনুষদের বর্তমান ডিন।

একজন জ্যেষ্ঠ শিক্ষক সিভয়েসকে বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্যের পদটি খালি রয়েছে দুবছর ধরে। বিশ্ববিদ্যালয় আইন অনুযায়ী উপাচার্যের পুনঃনিয়োগের দিন ভারপ্রাপ্ত উপচার্যের দায়িত্ব পালন করেন উপ-উপাচার্য। কিন্তু ওই পদটি খালি থাকায় কলা ও মানববিদ্যা অনুষদের ডিনকে এ দায়িত্ব দেয় শিক্ষা মন্ত্রণালয়।’

একদিনে দুই ভিসির ব্যাপারে চবি রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) সিভয়েসকে বলেন, ‘বিষয়টা আসলে একদিনে দুজন না। একজনই থাকবেন মূলত। একজন দায়িত্ব তুলে দিবেন আরেকজন বুঝে নিবেন। ইতিহাসে এর আগে দায়িত্ব পালনকালে অবসরে কেউ না যাওয়ায় এই প্রথম এমন আনুষ্ঠানিকতা পালন করা হচ্ছে।‘

তিনি আরও বলেন, ‘ওনার (ড. শিরীণ আখতার) নিয়োগপত্রে যদি আগে থেকে বলা হতো ওনি অবসরের পরেও উপাচার্যের দায়িত্ব পালন করবেন। তাহলে আজকের এই আনুষ্ঠানিকতা পালন করা প্রয়োজন হতো না। যেহেতেু ওনার প্রথম নিয়োগটা হচ্ছে, পুনরাদেশ না দেওয়া পর্যন্ত এ পদে বহাল থাকবেন। কিন্তু এর মধ্যে তিনি অবসরে যাওয়ার কারণে এ নতুন আদেশ আসে।’

অধ্যাপক ড. শিরীণ আখতার কক্সবাজার সরকারি গার্লস স্কুল থেকে ১৯৭৩ সালে এসএসসি, ১৯৭৫ সালে চট্টগ্রাম সরকারি গার্লস কলেজ থেকে এইচএসসি ও ১৯৭৮ সালে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা ভাষা ও সাহিত্য বিভাগ থেকে স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করেন। ১৯৮১ সালে একই বিভাগ থেকে এমএ সম্পন্ন করে তিনি যোগ দেন চট্টগ্রাম এনায়েত বাজার মহিলা কলেজে প্রভাষক হিসেবে।

এরপর ১৯৯১ সালে ‘বাংলাদেশের তিনজন ঔপন্যাসিক শওকত ওসমান, ওয়ালিউল্লাহ, আবু ইসহাক’ অভিসন্দর্ভের ওপর ভারতের যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করেন। এছাড়া তিনি ভারতের যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচডি ডিগ্রি নেন।

১৯৯৬ সালের জানুয়ারিতে ড. শিরীণ আখতার চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগে প্রভাষক পদে যোগ দেন। পরে ২০০৬ সালে অধ্যাপক পদে পদোন্নতি ও ২০১৬ সালের ২৮ মার্চ উপ-উপাচার্য হিসেবে নিয়োগ পান।

অধ্যাপক ড. শিরীণ আখতার ২০১৯ সালের ৩০ জুন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের দায়িত্ব লাভ করেন। তার বাবা মৃত আফসার কামাল চৌধুরী ছিলেন কক্সবাজার আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি।